ফেসবুক প্রফেশনাল মোড অন করে টাকা আয় করুন?

ফেসবুক প্রফেশনাল মোড অন করে টাকা আয় করুন
                                 ফেসবুক প্রফেশনাল মোড অন করে টাকা আয় করুন

 

ফেসবুক প্রফেশনাল মোড অন করে টাকা আয় করুন?

আসসালামু আলাইকুম আশা করি সকলে ভালো আছেন। আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা ফেসবুক ব্যবহার করেন।কেউ কেউ মেসেজ করার জন্য ব্যবহার করেন ।কেউ কেউ গান শোনার জন্য ,আবার অনেকে ভিডিও দেখে সময় কাটানোর জন্য ফেসবুক ব্যবহার করেন।

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা জানেন ফেসবুক থেকে টাকা ইনকাম করা যায়।এ কথা আবার অনেকেই জানেন না।অনেকে শুধু জানেন ফেসবুক এ শুধু পেজের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করা যায়।আজ আমি আপনাদের দেখাবো কিভাবে ফেসবুক এ পেজ না খুলে আপনার নিজের প্রফাইল থেকেও টাকা ইনকাম করার উপায়? ফেসবুক পেইজ না খুলে ফেসবুক প্রোফাইল থেকে টাকা ইনকাম কিভাবে করবেন? এই ফেসবুক এর টাকা কিভাবে হাতে পাবেন?কয়টা উপায় এ ফেসবুক থেকে ইনকাম করা যায়?এছাড়া ফেসবুক এর সকল ইনকাম সম্পকে বলবো। আর কথা না বাড়িয়ে চলন শুরু করা যাক।

আমাদের প্রথমে জানতে হবে আমাদের প্রোফাইল টি প্রোফাইল মুড অন আছে কিনা।

ফেসবুক প্রোফাইল কে কিভাবে প্রফেশনাল করবেন :-

ফেসবুক প্রোফাইলে প্রফেশনাল মুড অন করার আগে দেখবেন আপনার প্রোফাইলটি লক করা আছে কিনা । যদি লক করা থাকে। তাহলে সেটা আনলক করে দিবেন। নয়তো প্রফেশনাল মুড অন হবে না আপনার আইডিতে।প্রফেশনাল মুড অন করার জন্য সর্বপ্রথম আপনি আপনার প্রোফাইলে চলে যাবেন। তারপরে আপনার প্রোফাইলে ক্লিক করবেন। প্রোফাইলের ভেতরে প্রবেশ করার পর। তিনটা ফোটা দেখতে পাবেন যেটাকে বলা হয় (থ্রী ডট)। সেই তিনটা ফোটার উপর ক্লিক করে দিবেন। এরপর একটু নিচের দিকে তাকাবেন দেখবেন ওখানে লেখা আছে। প্রফেশনাল মোড অন। ওইখানে ক্লিক করে দিবেন। ওইখানে ক্লিক করে দেওয়ার পরে দেখতে পাবেন আবার লেখা আছে ট্রান অন ( Trun on) ওইখানে ক্লিক করে দিবেন। তাহলে প্রফেশনাল মুড অন হয়ে যাবে। যদি এই অপশনটি না থাকে তাহলে বুঝবেন আপনি প্রোফাইলটি এখনো লক আছে।

ফেসবুক প্রোফাইল থেকে কি কি উপায়ে টাকা ইনকাম করা যায় :-

আপনি ফেসবুক পেজের মত অনেক উপায়ে ফেসবুক প্রোফাইল থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।বলুন জেনে নেওয়া যাক কোন কোন মাধ্যমে ইনকাম করা যায়।

১।ফেসবুক এ আপনি ইন স্ট্রিম অ্যাড এ মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।

২।ফেসবুক এ আপনি লাইভ ইন স্ট্রিম অ্যাড এ মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।

৩।ফেসবুক এ আপনি অ্যাড অন রিলস এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।

৫।ফেসবুক এ আপনি ফেসবুক বোনাস এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।

৬।এছাড়া আপনি বাংলাদেশ এর বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।

ইন স্ট্রিম অ্যাড কি?

ইন স্ট্রিম অ্যাড হলো ফেসবুক থেকে মেইন ইনকাম এর রাস্তা।এই ইন স্ট্রিম অ্যাড যদি আপনার প্রোফাইলে অন থাকে তাহলে আপনি আপনার ফেসবুক প্রোফাইলে ভিডিও আপলোড এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।আপনি আপনার ভিডিও থেকে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন।আপনার ভিডিও গুলা যদি আপনার বন্ধুরা ও ফলোয়াররা দেখে তাহলে আপনার ইনকাম হবে।চলুন জেনে নেওয়া যাক ইন স্ট্রিম অ্যাড পেতে হলে আপনাকে কি কি কাজ করতে হবে?

ইন স্ট্রিম অ্যাড পেতে হলে যা যা করা লাগবে তা নিচে দেওয়া হলোঃ

(a) ইন স্ট্রিম অ্যাড পেতে হলে আপনার ৫ হাজার ফলোয়ার লাগবে।

(b)আপনার নিজের ভিডিও তে ৬০ হাজার মিনিট ওয়াসটাইম লাগবে।যা ৬০ দিনের মধ্যে পুরণ করতে হবে।

(c)ভিডিও গুলা হতে হবে আপনার নিজের। অন্যের কপি করা বা খারাপ ভিডিও হলে আপনি ইন স্ট্রিম অ্যাড পাবেন না।

(d)আপনার আইডিতে মোট ৫ টা ভিডিও থাকতে হবে।

লাইভ ইন স্ট্রিম অ্যাড কি?

ইন স্ট্রিম অ্যাড এর মত লাইভ ইন স্ট্রিম অ্যাড ও ভিডিওর ভেতরে শো করবে।কিন্তু এই লাইভ ইন স্ট্রিম অ্যাড সব ভিডিও তে শো করবে না। এটি শুধু লাইভ চলা কালীন সময় শো করবে।

লাইভ ইন স্ট্রিম অ্যাড পেতে হলে যা যা করা লাগবে তা নিচে দেওয়া হলোঃ

(a) লাইভ ইন স্ট্রিম অ্যাড পেতে হলে আপনার ৫ হাজার ফলোয়ার লাগবে।

(b)আপনার নিজের ভিডিও তে ৬০ হাজার মিনিট ওয়াসটাইম লাগবে।যা ৬০ দিনের মধ্যে পুরণ করতে হবে।

(c)ভিডিও গুলা হতে হবে আপনার নিজের। অন্যের কপি করা বা খারাপ ভিডিও হলে আপনি লাইভ ইন স্ট্রিম অ্যাড পাবেন না।

(d)আপনার আইডিতে মোট ৫ টা ভিডিও থাকতে হবে।

এক কথায় আপনি যদি ইন স্ট্রিম অ্যাড আপনার প্রফাইলে পেয়ে থাকেন তাহলে আপনি লাইভ করেও টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

(আগেই বলে দিচ্ছি এইটা শুধু ফেসবুক প্রোফাইল এর ক্ষেত্রে )

অ্যাড অন রিলস কি?

যারা প্রফেশনাল মুড অন করবেন তারা ওই প্রোফাইলে রিলস নামক একটা অপশন দেখতে পাবেন। এখন প্রশ্ন হচ্ছে যে এই রিলস থেকে আমি কিভাবে টাকা ইনকাম করব। রিলসটা হচ্ছে এক প্রকার টিক টক মতো। এখন কথা হচ্ছে এখানে কাজটা কি।

এই রিয়েলসটা হচ্ছে টিকটক এবং ইউটিউব এর শর্টস ( Shorts) ভিডিওর মতো।ফেসবুক কোম্পানিও চাইছে youtube এর মতো করে শর্ট ভিডিও গুলো চালাতে। এই রিলস প্ল্যাটফর্মে সট ভিডিওগুলো খুব তাড়াতাড়ি ভাইরাল হয়। আপনারা যারা tiktok এর জন্য শর্ট ভিডিও বানান। তারা সেরকম ভিডিও বানিয়ে এ রিলস প্লাটফর্মে পোস্ট করতে থাকবেন। আপনার এই ভিডিওর মধ্যে যে ভিউজ আসবে। সেই ভিউজের মাধ্যমে টাকাটা ইনকাম হবে।

অ্যাড অন রিলস সবাইকে ফেসবুক দেয় না ।এই অ্যাড অন রিলস পেতে হলে আপনাকে ৪৫ দিনের মধ্যে ১ লক্ষ ভিউ করতে হবে।তাহলে আপনি ফেসবুক এর পক্ষ থেকে অ্যাড অন রিলস পেয়ে যাবেন। অ্যাড অন রিলস থেকে অনেক ইনকাম হচ্ছে এখন।

ফেসবুক বোনাস কি?

ফেসবুক বোনাস এখনও বাংলাদেশ এ চালু হয় নি ।এই ফেসবুক বোনাস চালু হলে একজনকে ফেসবুক অনেক টাকা করে দেবে।এই বোনাস অপসন সবাই পাবেন না।ফেসবুক তার ইচ্ছা মত কিছু মানুষকে এই বোনাস টা দেবে।

বাংলাদেশ এর বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে ইনকাম কিভাবে করবেন?

বাংলাদেশ এর বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে ইনকাম করতে হলে আপনাকে ভাইরাল হতে হবে।আপনি যখন ভাইরাল হবেন।তখন আপনাকে বিভিন্ন প্রতিস্টান থেকে তাদের বিজ্ঞাপন করার জন্য অনুরোধ করবে।তখন আপনি বিজ্ঞাপন এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।

ফেসবুকের টাকা কিভাবে হাতে পাবো?

এখন আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে।ভাই সবই বললেন কিন্তু টাকা গুলা কিভাবে হাতে পাওয়া যাবে এইটা বললেন না।ফেসবুক এর টাকা গুলা হাতে পেতে হলে আপনার একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট লাগবে।এই অ্যাকাউন্ট এ টাকা আসবে।বাংলাদেশ এর যে কোন ব্যাংক থেকে টাকা নিতে পারবেন।আপনার অ্যাকাউন্ট এ ১০০ ডলার হলে আপনি সেই টাকা ব্যাংক এ নিতে  পারবেন। এছাড়া আপনি পেপাল এর মাধ্যমে ফেসবুক এর টাকা নিতে পারেন।

কত ভিউ এ কত টাকা?

ফেসবুক এ ইনকাম করতে হলে ভিউ এর দরকার আছে।কিন্তু কত ভিউ এ কত টাকা এইটা বলা সম্ভাব না।ফেসবুক এ মুলত ইনকাম হয় জায়গা ভেদে। মনে করেন বাংলাদেশ থেকে ১ লক্ষ ভিউ এসেছে ।এই ভিউ থেকে আপনার ইনকাম হবে প্রায় ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা।যদি এই ভিউ টা আমেরিকা থেকে হত তাহলে আপনার ইনকাম এর ডাবল হত।দেশ ভেদে ইনকাম হয় ।

কোন ভিডিও তে বেশি ভিউ আসে?

ফেসবুক এ  সকল ভিডিও তে ভিউ আসে। কিন্তু বর্তমান সময় এ কষ্টের ভিডিও তে বেশি ভিউ আসে।

প্রফেশনাল মুডের অসুবিধা :- এর অসুবিধা এই যে আপনার ব্যক্তিগত প্রোফাইলটিকে আপনি প্রফেশনাল মুড করবেন। সেটি দেখতে ভালো লাগবে না। কারণ যখন একটা ফেসবুক প্রোফাইল ব্যক্তিগত থাকে তখন একটি সৌন্দর্যের ব্যাপার হয়ে থাকে। কিন্তু তা যখন প্রফেশনাল মুড অন করে দিবেন। তখন সেই সৌন্দর্যটা থাকে না। আপনার বন্ধুরাও বুঝতে পারে না যে এটা আপনার অরিজিনাল অর্থাৎ পার্সোনাল আইডি কিনা। তাই প্রফেশনাল মুড অন করার জন্য অন্য আরেকটি বা একাধিক আইডি ক্রিয়েট করতে হয়। যেটা থেকে আপনি বিজনেস অর্থাৎ আর্ন করতে পারবেন।

এখন আমি আলোচনা করব যে প্রফেশনাল মুড টি অফ করবেন কিভাবে.?

যখন প্রফেশনাল মুড অন করা থাকবে তখন দেখবেন আপনার প্রোফাইলে কিছু অন্যান্য রকম অপশন থাকবে। যা আপনার নরমাল প্রোফাইলে থাকে না। এটা অফ করার জন্য সর্বপ্রথম আপনি দেখবেন ড্যাশবোর্ড নামক অপশন আছে ঠিক তার পাশে দেখবেন তিনটা ফটো আছে যেটাকে আমরা বলি থ্রী ডট। সেই থ্রী ডট এ ক্লিক করে দিবেন। এরপর একটু নিজের দিকে গেলে দেখতে পাবেন যে ট্রান অফ নমক অপশন আছে ওইখানে ক্লিক করে দিবেন। এরপরে আবার লেখা উঠবে কন্টিনিউ, ওইখানে আবার ক্লিক করে দিবেন এরপরে দেখবেন আবার লেখা আসবে ট্রান অফ, সেখানে ক্লিক করে দিবেন তাহলে দেখবেন যে হয়ে গেছে।

এখন আলোচনা করব যে আপনার ফেসবুক পেজ বা আপনার ফেসবুক আইডি থেকে ইনকাম কিত ডলারটি কোথায় এসে জমা হয়েছে। কত ডলার ইনকাম হয়েছে। ঠিক এই ডলারটি আপনি আপনার পকেটে কিভাবে নিয়ে আসবেন। সমস্ত কিছু বিস্তারিত আলোচনা করে দিব।

আপনি সর্বপ্রথম আপনার ফেসবুক প্রোফাইল বা ফেসবুক পেজ বা ফেসবুক আইডিতে চলে যাবেন। সেখানে দেখবেন ম্যানেজ নামক একটা অপশন আছে। সেখানে ক্লিক করে দিবেন। কিংবা আপনার professional Dashboard নামক একটা অপশন আছে ওইখানে যেতে পারেন। সর্বপ্রথম আপনাদেরকে আলোচনা করে দেখাবো যে আপনি কোন কোন খাত থেকে কি কিভাবে কত ডলার ইনকাম করেছেন।

তো সেটা দেখার জন্য আপনি দেখতে পাবেন যে মনিটাইজেশন টুলস নামক অপশন আছে। ওইটার উপর ক্লিক করে ভিতরে প্রবেশ করবেন । ভিতরে প্রবেশ করেই দেখতে পারবেন যে আপনি কোন Tools বা কোন কোন খাত থেকে টাকা ইনকাম করেছেন। মনিটাইজেশন টুস এ প্রবেশ করার পর যে অপশনগুলো থাকবে । সে প্রত্যেকটা অপশনের ভিতরের প্রবেশ করে আপনি দেখতে পারবেন যে আপনি কত দিনে কত ডলার ইনকাম করেছেন।

এরপর আপনি কিভাবে দেখবেন যে আপনার সবগুলো ডলার কোথায় জমা হয়েছে। সেটাও আপনি দেখতে পারবেন ।সেটা দেখার জন্য আপনি আবার চলে যাবেন প্রফেশনাল ড্যাস বোর্ডে। এইখানে প্রবেশ করার পর দেখবেন যে মনিটাইজেশনের নিচে পে আউট নামক অপশন আছে। ওইটার ভিতরে প্রবেশ করলে আপনি দেখতে পারবেন যে আপনি কত দিনে কত ডলার ইনকাম করেছেন।

আপনি এই ডলারগুলো কিভাবে পাবেন। আপনি যখন মনিটাইজেশন অন করেছিলেন তখন ওইখানে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট দিয়েছিলেন। সেই ব্যাংক একাউন্টে অটোমেটিকলি টাকা ঢুকে যাবে। আপনি যে নাম্বারটা দিয়েছিলেন সেই নাম্বারে এসএমএস আসবে যে আপনার ব্যাংকে কত টাকা ঢুকেছে। তখন আপনি ব্যাংকে গিয়ে টাকাটি তুলে নিয়ে আসতে পারবেন। এইভাবে আপনি আপনার ইনকাম কিত টাকা পকেটে নিয়ে আসতে পারবেন।

তো বন্ধুরা এই ছিল আজকের মত আলোচনার বিষয়। মানুষ তো আর এমনি এমনি বলে না যে ফেসবুক হল টাকার খনি। উপরোক্ত টিপস গুলো মেনে চলুন দেখবেন আপনিও ফেসবুকের মাধ্যমে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

তো বন্ধুরা আজকের মত এই পর্যন্তই আমার আলোচনা ও প্রেক্ষাপট। এইরকমই সকল নতুন নতুন আলোচনা নিয়ে আপনাদের মাঝে হাজির হব আবার। সকলে ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন। আমার পাশে থাকবেন। ধন্যবাদ সকলকে। আল্লাহ হাফেজ।

আসসালামু আলাইকুম।আমি মোঃ জাহিদুল ইসলাম শাওন।

Leave a Comment