ফেসবুক মার্কেটিং কি? কিভাবে করবেন ফেসবুক মার্কেটিং?

আসসালামু আলাইকুম ,আশা করছি সকলে ভালো আছেন । রিভিউ জোনবিডিতে আপনাদের স্বাগতম।আজকে আমি আপনাদেরকে ফেসবুক মার্কেটিং নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব।

ফেসবুক মার্কেটিং কি কিভাবে করবেন ফেসবুক মার্কেটিং

 

ফেসবুক মার্কেটিং


ডিজিটাল মার্কেটিং এর সব থেকে বড় অংশ জুড়ে রয়েছে ফেসবুক মার্কেটিং। ফেসবুক মার্কেটিং এ আমরা সব থেকে বেশি অভ্যস্ত। তার কারণ দিনশেষে অনেক বড় একটা সময় আমরা ফেসবুকে ব্যয় করি। কেউ ফেসবুকে চ্যাটিং করতে করতে, কেউ ভিডিও করতে, করতে কেউ বা আবার গ্রুপিং করতে।

আমরা চাইলে বড় খুব সহজে ফেসবুক মার্কেটিং করতে পারি । ফেসবুকে মার্কেটিং করে অনেক লাভ আছে তার কারণ হলো দিনশেষে আপনি যে প্রোডাক্টটি বিক্রি করেন না কেন সে প্রোডাক্ট এর কাস্টমার যারা আছে তারা ফেসবুকেই রয়েছে। তাদেরকে টার্গেট করার জন্য বা মার্কেটিং করার জন্য ফেসবুকে কি প্ল্যাটফর্ম খুব গুরুত্বপূর্ণ।

এখন ফেসবুকে আপনি কিভাবে ফেসবুক মার্কেটিং করতে পারবেন?

এখন ফেসবুক মার্কেটিং করার জন্য কিছু মেথড আছে ।একটি হচ্ছে পেইড মেথড আর একটি হচ্ছে ফ্রি মেথড। আপনি যখন ফেসবুকে একটা পোস্ট করবেন ।পোস্ট করার পরে নিচে একটি অপশন আসবে বুষ্ট পোস্ট এখানেই আপনি বিভিন্ন ধরনের অপশন পাবেন। যেখানে লেখা থাকবে আপনি এই পোস্টটা কাদের কাছে পৌঁছাতে চাচ্ছেন বা কতজনের কাছে পৌঁছাতে চাচ্ছেন। তারপর কাদের কাছে পাঠাবেন ছেলে অথবা মেয়ে বা ছেলেমেয়ে উভয়ের কাছেই পাঠাতে পারবেন । আপনি চাইলে যেকোন লোকেশন লোকেশন যেমন শুধুমাত্র ঢাকা বা শুধুমাত্র রংপুর বা বাংলাদেশ সবকিছু সিলেক্ট করার পরে ফেসবুক আপনাদের বলবে যে কিছু ডলার পোস্ট করো।

আপনাকেও এমাউন্টটা রেগুলার পেমেন্ট করতে হবে ফেসবুকে । তাহলে ফেসবুক আপনার টার্গেট অনুযায়ী কাজ করে দিবে। এভাবেই আপনি চাইলে পেইড মার্কেটিং করতে পারেন। কিন্তু এই পেইড মার্কেটিং টা অনেকে করে না। দিনশেষে সবাই ফ্রী মার্কেটিং টাই করতে চায় । আজকের ভিডিওটা শুধুমাত্র তাদের জন্যই যারা ফ্রিতে ফেসবুক মার্কেটিং করতে চাই। আপনারা ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং ব্যবহার করবেন তারা মূলত দুটি জিনিস ইউজ করতে পারেন

১) ফেসবুক পেজ

২) ফেসবুক গ্রুপ

প্রশ্ন : এখন আপনাদের প্রশ্ন হচ্ছে কোনটা দিয়ে শুরু করব পেজ নাকি গ্রুপ?

উত্তর: ফেসবুক পেজ এবং গ্রুপ একসাথে শুরু করা উচিত।

এখন মনে করেন আপনি ঘড়ির ব্যবসা করেন ।এখন আপনি একটি পেজ খুলতে পারেন তার নাম দিতে পারেন বাংলাদেশি ঘড়ি। অথবা আপনি বিভিন্ন ধরনের নাম দিতে পারেন । আপনি এই পেজে আপনি যখনই পোস্ট করবেন তখনই মানুষ দেখবে। কিন্তু আপনি যদি একটা বিষয় নিয়ে পরে থাকেন তাহলে তো আপনি এগোতে পারবেন না ।এখন চিন্তা করেন আপনি বাংলাদেশি ঘড়ি দিয়ে একটা গ্রুপ খুললেন। তখন যারা ঘুরি পছন্দ করে তারা কিন্তু সকলেই গ্রুপে জয়েন হবে।

অথবা আপনি যদি লোকদেরকে বলেন যে আপনি একটি গ্রুপ করেছেন তার নাম বাংলাদেশের ঘড়ি তোমরাও তাতে এড হও। তখন যারা ঘড়ি পছন্দ করে তারাই কিন্তু গ্রুপে জয়েন হয়ে যাবে ।তখন আপনি আপনার যে ঘড়ি আছে সেগুলো পোস্ট করবেন । অথবা ইউজাররা আছে তাদেরকেও বলবেন পোস্ট করতে ।এতে করে কি হবে? আপনার ফেসবুক গ্রুপটা অনেক বড় হয়ে যাবে ।

গ্রুপটা বড় হলেও কিন্তু একদিন আপনি থাকবেন ।আপনার গ্রুপে লেখা থাকবে আপনি কিভাবে ঘড়ি সেল করবেন ?কিভাবে মানুষের কাছে পৌঁছে দেবেন? এগুলো যখন থাকবে তখন যাদের ঘড়ি দরকার তারা কিন্তু আপনার কাছে ঠিকই যোগাযোগ করে নিবে ।এভাবে আপনি গ্রুপে থেকে ফেসবুক মার্কেটিং করতে পারেন ।

আরেকটি হচ্ছে ফেসবুক মার্কেটপ্লেস


আপনার কাজ হবে ফেসবুক মার্কেট পেজে পোস্ট করা। আপনি যে ঘড়ি সেল করতে চান সে বিষয় নিয়ে আপনাকে পোস্ট করতে হবে। প্রথম কয়েকদিন আপনার পোস্ট বেশি পাবলিস্ট না হলেও রেগুলার ২টা ৩টা ৪টা করে পোস্ট করবেন।যখন পোস্ট করবেন তখন ওটা ঠিকই মানুষের কাছে পৌঁছাবে ।

আপনি যদি ঘরি সেল করেন তাহলে যাদের ঘড়ি দরকার তারা কিন্তু ঠিকই আপনাকে মেসেজ করবে। এখন আপনি চাইলে তাদের কাছে সেল করতে পারবেন।আর একবার জারা আপনার কাছে ভালো জিনিস পাবে তখন তারা আবার আপনার কাছে ওই একই পন্য টি নেয়ার জন্য মেসেজ দিবে। পরে আপনি চাইলে অনায়াসে তাদের কাছে পন্য টি সেল করতে পারবেন।এভাবে আপনি চাইলে ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং করতে পারেন ।

আরেকটা বিষয় হচ্ছে অন্যের facebook গ্রুপে মার্কেটিং করা । বাংলাদেশের বিভিন্ন ধরনের বাই এন্ড সেল গ্রুপ আছে। এখন আপনার কাজ হবে আপনি আপনার ফেসবুকে সার্চ করে জয়েন হয়ে নিবেন। তারপর আপনি এই গ্রুপগুলোতে পোস্ট করবেন। এখন প্রশ্ন হচ্ছে আপনি কি ধরনের কনটেন্ট পোস্ট করবেন? আপনি চাইলে ভিডিও পোস্ট করতে পারেন।

অথবা টাইপ করে পোস্ট করতে পারেন ।অথবা পিক দিয়ে পোস্ট করতে পারেন। আপনি কি করবেন আপনি গ্রুপগুলোতে জয়েন হবেন জয়েন হয়ে পোস্ট করবেন ।পোস্ট করার পরে যাদের এই ঘরিটা দরকার তারা আপনার পোস্টে কমেন্ট করবে অথবা আপনাকে মেসেজ দিবে । তখন আপনি তাদের কাছে আপনার ঘড়িটি সেল করতে পারবেন।

আমাদের শেষ কথা:

আপনার ব্যবসাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে আপনাকে অবশ্যই অনেক পরিশ্রম করতে হবে এবং অনেক সময় ব্যয় করতে হবে। আপনাকে লক্ষ ঠিক রেখে কাজ করতে হবে।একটা কথা সবসময় মনে রাখতে হবে পরিশ্রম ছাড়া কিন্তু উন্নতি সম্ভব নয়। এখন আপনাদের যদি আমাদের এই উপরের ফেসবুক মার্কেটিং এর বিষয় বস্তু গুলো ঠিক ভাবে বুঝতে পারেন । তাহলে আপনাদের বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না। এবং আমাদের যদি আপনাদের বোঝাতে কোন ভুল ত্রুটি হয়ে থাকে তাহলে ক্ষমা করে দেবেন। আল্লাহ হাফেজ

আসসালামু আলাইকুম।আমি মোঃ জাহিদুল ইসলাম শাওন।

Leave a Comment