আন অফিসিয়াল ফোন কি বন্ধ হবে?

আসসালামু আলাইকুম। আশা করি আল্লাহর রহমতে ভালো আছেন। রিভিউ জোন বিডিতে আপনাকে স্বাগতম।

 আন অফিসিয়াল ফোন কি বন্ধ হবে
                                                                  আন অফিসিয়াল ফোন কি বন্ধ হবে

 

আমরা অনেকেই নতুন বা পুরাতন ফোন কেনার কথা ভাবছি। আমরা মার্কেট থেকে যে ফোনগুলো কিনি।সেই ফোন গুলা অফিসিয়াল না আনঅফিসিয়াল সেটা কিন্তু আমরা জানি না। অফিসিয়াল ও আন অফিসিয়াল ফোন চেনার কিছু উপায় আছে। এই কিছু উপায়ের মাধ্যমে আমরা জানতে পারি কোন ফোনটি অফিসিয়াল ও কোন ফোনটি আনঅফিসিয়াল। আজকে আমি আলোচনা করব অফিসিয়াল ফোন উপায় ও ফোনের কিছু কোড নিয়ে।চলুন শুরু করা যাক —

অফিসিয়াল ফোন কেনার আগে জানতে হবে অফিসিয়াল ফোন মানে কি? চলুন জেনে নি।

আপনি এই পোস্ট গুলা পড়তে পারেন?

1.আপনার হাতে থাকা ফোন এর কি সমস্যা আছে চেক করুন।পুরনো ফোন কেনার আগে এটা চেক করুন!

2.ফেসবুক প্রফেশনাল মোড অন করে টাকা আয় করুন?

3.কিভাবে ইউটিউব থেকে ইনকাম করবেন।ঘরে বসে ইউটিউব থেকে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করুন

4.বাংলা থেকে ইংরেজি অনুবাদের নিয়ম সম্পর্কে জানুন?

অফিসিয়াল ফোন কি?

যে সকল ফোন বিদেশ থেকে বাংলাদেশকে ট্যাক্স দিয়ে আমদানি করে আনা হয় অথবা যে সকল ফোন বাংলাদেশ সরকারের অনুমোদিত সে সকল ফোনকে অফিসিয়াল ফোন বলে। অনেকে বিদেশ থেকে যে সকল ফোন কিনে আনে সেগুলো সব আন অফিসিয়াল ফোন।

অফিশিয়াল ফোনগুলো চেনার উপায় নিচে বর্ণনা করা হলো :

১। প্রথমে আপনার মোবাইলটির ডায়াল প্যাড এ গিয়ে টাইপ করুন *#০৬#
২।তারপর দেখতে পাবেন ১৫ সংখ্যার দুইটি কোড। এই কোট্টিকে বলে আইএমইআই[IMEI] কোড। এবার এই কোডটি কপি করে রেখে দিন।
৩।তারপর ফোনের মেসেজ অপশনে গিয়ে টাইপ করুন KYD স্পেস ১৫ ডিজিটের আইএমইআই[IMEI] নম্বর ।
৪।তারপর পাঠিয়ে দিন ১৬০০২ নাম্বারে।
৫।আপনার এসএমএস যাওয়ার পথ তারা আপনাকে একটা এসএমএস পাঠাবে। এই এসএমএস এর লিখা থাকবে আপনার ফোনটি বৈধ না অবৈধ। যদি আপনার ফোনটি বৈধ হয় তাহলে লিখা থাকবে [এই ডিভাইসটি আমাদের ডাটাবেজ এ পাওয়া গেছে ]আর যদি অবৈধ হয় তাহলে লিখা আসবে [আপনার ডিভাইসটি আমাদের ডাটাবেজে নিবন্ধিত নয় ]।

অফিসিয়াল ফোন কেনার সুবিধা :

১।অফিসিয়াল ফোনটি আপনার নামে নিবন্ধন করা থাকবে।
২।মোবাইলটি হারিয়ে গেলে থানায় গিয়ে জিডি করলে ফোনটি পাওয়া যাবে।
৩।মোবাইলটি বন্ধ হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে না। আনঅফিসিয়াল মোবাইলের থেকে বেশি দিন চলবে।
৪।মোবাইলের কোন সমস্যা হলে কাস্টমার কেয়ারে গিয়ে সমস্যার সমাধান করা যাবে।
৫।মোবাইল কেনার পর এক বছরের ওয়ারেন্টি থাকবে।

এছাড়াও আপনি অফিসিয়াল ফোনে অনেক সুবিধা পেয়ে যাবেন।

আন অফিসিয়াল ফোনের অসুবিধা :

১।আন অফিসিয়াল ফোনটি বাংলাদেশ সরকারের অনুমোদিত না। যার ফলে বাংলাদেশ সরকার যখন তখন আপনার মোবাইলটি বন্ধ করে দিতে পারবে।
২।আপনার মোবাইলের কোন সমস্যা হলে কাস্টমার কেয়ারের সার্ভিস পাবেন না।
৩।আন অফিসিয়াল ফোনের কোন ওয়ারেন্টি থাকে না।
৪।আন অফিসিয়াল ফোন বেশি দিন চলে না।
৫।আন অফিসিয়াল ফোন হারিয়ে গেলে থানায় জিডি নেই না।যার ফলে আপনার ফোনটি আর খুঁজে পাওয়া যায় না । আন অফিসিয়াল ফোনে সব সময় সমস্যা লেগেই থাকে।

আন অফিসিয়াল ফোন চেনার উপায় :

আপনারা অফিসিয়াল ফোন যেভাবে যাচাই করবেন সেভাবে ফোনটি যাচাই করতে হবে। এইজন্য অফিসিয়াল ফোন যেভাবে চেক করবেন এভাবে আন অফিসিয়াল ফোনটা চেক করবেন।

আপনারা সব সময় অফিসিয়াল ফোন কেনার চেষ্টা করবেন। মনে রাখবেন ফোনের দামটা একটু বেশি হলেও ফোনটি অনেক ভালো হয়। কিন্তু অফিসিয়াল ফোনটি আপনার নিজের নামে নিবন্ধন করা থাকবে। যার ফলে অন্য কেউ আপনার ফোনটি নিজের বলে দাবি করতে পারবে না। অনেক সময় আন অফিসিয়াল ফোনের বক্স থাকেনা।

বন্ধুরা আজকের মত এখানেই শেষ করছি। নতুন নতুন এমন পোস্ট পেতে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। আপনাদের কোন সমস্যা থাকলে এর কমেন্ট করে জানান।

আসসালামু আলাইকুম।আমি মোঃ জাহিদুল ইসলাম শাওন।

Leave a Comment